মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ১০:২৮ অপরাহ্ন

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
৮৩৩,২৯১
সুস্থ
৭৭১,০৭৩
মৃত্যু
১৩,২২২
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
৩,৩১৯
সুস্থ
২,২৪৩
মৃত্যু
৫০
স্পন্সর: একতা হোস্ট

সংবাদ সম্মেলনে নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর অভিযোগ, সাংসদ জাফরের নেতৃত্ব হামলা পৌর মেয়রসহ আহত-১০

মাতামুহুরী ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১

কক্সবাজার ১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সাংসদ জাফর আলমের নেতৃত্বে হামলার ঘটনায় পৌর মেয়র আলমগীর চৌধুরী ও পৌর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকসহ ১০ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে চিংড়ি চত্বর এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটায়।

এসময় হামলায় আহত হন উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রেফায়েত সিকদার, সাদ্দাম হোসেন মিটু, মিজান তুষার, লিটন, ফজলুল কবির ও মিজবা উদ্দিন বাপ্পিসহ ১০জন নেতাকর্মী।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আলমগীর চৌধুরী

মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে মেয়রসহ অন্যান্যদের উপর হামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে মুহুর্তের মধ্যে পুরো পৌরশহর জুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। মেয়রের উপর হামলার খবর পেয়ে তার সমর্থকরা তাৎক্ষনাত বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। এসময় হামলার ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবী করেন তারা। পরে চকরিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

জানা যায়, দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী কার্যকলাপে জড়িত অভিযোগে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নির্দেশে (৮ জুন) মঙ্গলবার কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ চকরিয়া পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটুকে সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেন। তার স্থলে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয় পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোসলেহ উদ্দিন মানিককে।
এ খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে লিটুর সমর্থকদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এর জের ধরে রাত ১০টার দিকে পৌর নির্বাচনের গণসংযোগ শেষে মেয়র আলমগীর চৌধুরী ও আতিক উদ্দিন চৌধুরী নেতাকর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় করার সময় স্থানীয় সাংসদ জাফর আলম, লিটু ও বির্তকিত যুবলীগ নেতা আদরের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী লাঠিসোটা নিয়ে তাদের উপর হামলা করে। মেয়রের পাঞ্জাবি টানা হেসড়া করে ছিড়ে ফেলে। এসময় ৫-৬টি প্লাষ্টিকের চেয়ারও ভাঙচুর করে। এসময় দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে মেয়রের সমর্থকরা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়েন।

এদিকে বুধবার বিকাল ৪টায় গ্রামীণ ব্যাংক সেন্টারে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, সাংসদ জাফর আলম ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু নৌকা প্রতিকের বিরুদ্ধে বিরোধা ও অপপ্রচার করছেন। সাংসদের আপন ভাতিজা ও স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী জিয়াবুল হকের পক্ষে নানাভাবে ভোট চাচ্ছেন তারা। এরআগে জেলা আওয়ামীলীগ পৌর নির্বাচন নিয়ে বৈঠক করেন। ওইসময় লিটু ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি-সম্পাদকদের না আসার জন্য বিভিন্নভাবে বাধা দেন।
এ ঘটনায় জেলা আ.লীগ সভাপতির পদ থেকে লিটুকে অব্যাহতি দিয়েছেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে লিটু ও বিতর্কিত যুবলীগ নেতা হাসানুল ইসলাম আদরের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা আতিক উদ্দিন চৌধুরী ও আমার উপর হামলা চালিয়েছে।
তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া নৌকা প্রতীককে পরিকল্পিতভাবে পরাজিত করতে সাংসদ জাফর আলম উঠেপড়ে লেগেছেন। হামলার মধ্যদিয়ে সেটা প্রমাণিত হয়েছে। তিনি নৌকার সমর্থকদের হামলা ও মামলার হুমকি দিচ্ছেন। বিভিন্ন স্থানে নৌকার পোষ্টার ছিড়ে ফেলা হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে জোর দাবী জানান।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী, উপজেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি যথাক্রমে সরওয়ার আলম, মোকতার আহামদ চৌধূরী, সৈয়দ আলম কমিশনার, উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, পৌর আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক মোসলেহ উদ্দিন মানিক, সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধূরী, যুবলীগ নেতা মোজাফ্ফর হোসেন পল্টু, সাবেক চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আল আজাদ, এডভোকেট ফয়জুল কবির ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত ওসমান প্রমুখ।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

একই রকম আরো নিউজ
© All rights reserved © 2021 matamuhuri.com
কারিগরি সহযোগিতায়: Infobytesbd.com
Jibon